August 3, 2020, 9:53 am

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের সাইটে স্বাগতম...
সংবাদ শিরোনাম :
সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে ঈদুল আযহা পালনের আহবান…মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান,খাদিজা আক্তার আখি সোনারগাঁও খবর ডটকম পক্ষ থেকে সবাইকে ঈদুল আজহা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সম্পাদক হারুন রশিদ গজারিয়া বাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছন উপজেলা পরিষদের (সাবেক) মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক ফরিদা ইয়াসমিন আসুন আমরা স্বাস্থ্য বিধি মেনে ঈদুল আযহা উৎযাপন করি সাংবাদিক আবুবকর সিদ্দিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকলে ঈদ উদযাপন করুন..ইঞ্জিঃ মাসুম সোনারগাঁয়ে সরকারী স্বাস্থ্যবিধি মেনে আসুন আমরা ঈদুল আযহা উদযাপন করি–এমপি খোকা বালুয়াকান্দি ইউনিয়নে প্রধান মন্ত্রীর পক্ষ থেকে অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ টেংগারচর ইউনিয়নের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ ভবেরচর ইউনিয়নের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নে ঈদ সামগ্রী বিতরণ

সোনারগাঁওয়ে পাওনা টাকা না দেওয়ার জন্যই খুন করা হয় ইমামকে

সোনারগাঁও খবর ডটকম : সোনারগাঁওয়ে পাওনা টাকা না দেওয়ার জন্যই খুন করা হয় মসজিদের ইমাম দিদারুলকে। তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে গত ২৭ আগষ্ট গভীর রাতে মাদারীপুরের শিবচর এলাকা থেকে হত্যাকারী ওহিদুর রহমান (৩১)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ । গতকাল বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার হারুন-অর-রশিদ তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য জানান।

উল্লেখ্য, গত ২২শে আগস্ট সোনারগাঁও উপজেলার মল্লিকপাড়া গ্রামের নারায়ণদিয়া বায়তুল জালাল জামে মসজিদের ইমাম দিদারুল ইসলামকে গলা কেটে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। নিহত দিদারুল খুলনার তেরখাদা থানার রাজাপুর এলাকার আফতাব ফরাজির ছেলে। এর আগে গত ২৬ জুলাই তিনি মল্লিকপাড়া গ্রামের ওই মসজিদটিতে ইমাম হিসেবে নিয়োগ পান।
হত্যাকান্ডের পর জেলা পুলিশ সুপারের (এসপি) নির্দেশে ক্লু-লেস এ মামলার তদন্তে নামে পুলিশ। তদন্তে তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে আসামিকে শনাক্ত করে তাকে গ্রেফতার করা হয়। হত্যাকারী ওহিদুর রহমান খুলনার নড়াইলের কলাবাড়ীয়া পশ্চিমপাড়া গ্রমের আব্দুর রাজ্জাক (টুকু) শেখের ছেলে। ওহিদুর রহমান নিজেও মাদারীপুরের শিবচরের স্থানীয় একটি মসজিদে ইমামতি করতো।

পুলিশ সুপার আরো জনান, ঘটনাটি অন্যদিকে মোড় দেওয়ার জন্য ঘটনা স্থলে একটি চিঠি লেখে যান হত্যা কারী। সেখানে হত্যা কারী নিজেকে হিজবুত তাহরীত এর সদস্য পরিচয়ে একটি নাম্বার দিয়ে টাকাও চেয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত রক্ষা হয়নি তার। হত্যা কারীর সাথে দিদারুলের স্বর্ণের বারের ব্যবসা ছিল। ব্যবসা নিয়েই ইমাম ও তার বন্ধুর মধ্যে দ্বন্দ হয়। পরে ইমাম দিদারুল ব্যবসা থেকে সরে আসতে এবং বিনিয়োগের উদ্দেশ্যে দেওয়া টাকা ওহিদুরের কাছে ফেরত চায়। টাকা ফেরত না দেওয়ার জন্যই তাকে হত্যা করতে পরিকল্পনা সাজায় ওহিদুর।

পরিকল্পনা মতে, হত্যাকান্ডের আগের দিনও দিদারুলের সঙ্গে দেখা করে তার সঙ্গে চা খেয়ে হত্যার পরিকল্পনা সাজিয়ে যায় ঘাতক বন্ধু। পরে হত্যাকান্ডের দিন এশার নামাজের পর রাতের খাবার প্রস্তুত করার সময় দিদারুলকে কোকের সাথে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাবার খাওয়ানো হয়। এতেই দিদারুল অচেতন হয়ে পড়েলে খুনি তাকে খুন করে পালিয়ে যায়।
তিনি আরো জানান, খুনির তথ্য মতে মসজিদের পুকুর থেকে চাপাতি ও রক্ত মাখা লুঙ্গি উদ্ধার করা হয়। এঘটনার সাথে অন্য কারো যোগসাজশ আছে কিনা তা খতিয়ে দেখছি এবং দ্রুত এ মামলার চার্জশিট দিব।

এই পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

© All rights reserved © 2017 সোনারগাঁও খবর
Design BY Codeforhost.com
themesbsongar1727434411