July 11, 2020, 8:17 pm

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের সাইটে স্বাগতম...
সংবাদ শিরোনাম :
গজারিয়ায় নিন্ম আয়ের পরিবারে মাঝে প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেন ইউপি চেয়ারম্যান লিটন গজারিয়া উপজেলা পরিষদের স্থায়ী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত। সোনারগাঁয়ে একদিনে ৫ জনের দেহে করোনা সনাক্ত, সুস্থ ২ মোট আক্রান্ত ৪৪৬ গজারিয়ায় আধ্যাত্মিক সাধক সামসু পাগলার কুলখানিতে এমপি শামীম ওসমান। সোনারগাঁওয়ে পুর্ব শত্রুতায় রিক্সা চালককে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে প্রতিপক্ষ নাদিম গজারিয়ায় বিট পুলিশিং এর উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় সোনারগাঁওয়ে শিক্ষক সহজ ৪ জনকে পিটিয়ে আহত সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইসিজি মেশিন দিলেন এমপি পত্নী ডালিয়া গজারিয়া থানা পুলিশের করোনা জয়ের গল্প আড়াইহাজারে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

ভূমিদস্যু আল মোস্তফা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে সোনারগাঁওয়ে কৃষকদের হামলা, মামলাসহ প্রাণনাশের হুমকী প্রদান করায় প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ

সোনারগাঁও খবর ডটকম : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের মেঘনার শাখা নদী, আষাঢ়িয়ারচর এলাকায় নীরিহ কৃষকের ফসলি ও সরকারী খাস জমিতে স্থানীয় শিল্প-প্রতিষ্ঠানের মালিক আল মোস্তফা গ্রুপের প্রধান মোস্তফা কামাল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে জোরপূর্বক বালু ভরাট ও প্রাণনাশের হুমকীর বিরুদ্ধে স্থানীয় এলাকাবাসী জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, অতিঃ পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার ভূমি, সোনারগাঁও থানা অফিসার ইনচার্জসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতনমহলে স্মারকলিপি প্রদান করেন।
স্মারকলিপিতে তারা উল্লেখ করেন, আমরা উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের আষাঢ়িয়ারচর গ্রামবাসী আষাড়িয়াচর মৌজায় বসবাস করিয়া আসিতেছি। এদের মধ্যে কেউ বিভিন্ন এলাকা থেকে এসে কিছু জমি ক্রয় করিয়া বাড়ীঘর তৈরী করে বসবাস করিয়া আসিতেছে। সম্প্রতি, স্থানীয় শিল্প-প্রতিষ্ঠানের মালিক আল মোস্তফা গ্রুপের প্রধান মোস্তফা কামাল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের আষাঢ়িয়ারচর মৌজার প্রায় কয়েকশ বিঘা জমিতে গত কয়েকদিন যাবত তিন চারটি শক্তিশালী ড্রেজার বসিয়ে স্থানীয় ঠিকাদারদের সহযোগীতায় আল-মোস্তফা গ্রুপের পক্ষে মেঘনার শাখা আষাঢ়িয়ারচর নদী, কৃষকের ফসলি জমি ও সরকারী খাস জমিতে জোরপূর্বক বালু ভরাট করে দখল করে নিচ্ছে। এদিকে স্থানীয় জমির মালিক ও কৃষকরা তাদের জমি ভরাটে বাঁধা দিতে গেলে আল-মোস্তফা গ্রুপের সন্ত্রাসী ও পালিত লোকজন মারধর ও মামলা হামলাসহ প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। এমনকি আমাদের জায়গা-জমি থেকে উচ্ছেদ করে আমাদেরকে অন্যত্র চলে যেতে বলছে এবং মিথ্যা মামলা দিয়ে খাগড়াছড়ি, বান্দরবন পাঠিয়ে দিবে বলে অনবরত হুমকী প্রদান করছে। আমাদের মধ্যে অনেকের চরলাউয়াদী মৌজার বাড়ীঘর মেঘনা নদী ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে গিয়েছে। এমতাবস্থায় আমাদের নিজেদের বাড়ীঘর উচ্ছেদ করে দিলে মাথা গুজার ঠাঁই থাকবে না। অপরদিকে তারা কিছু লোকের জমি ক্রয় না করে জোরপূর্বক বালু ভরাট করে দখল করার পাঁয়তারা করছে এবং মানুষের চলাচলের রাস্তা, সরকারী হালট, খাল, নদী, চিহ্নিত খাস জমি ভরাট করে নিচ্ছে। তাছাড়া আমাদের গ্রামে একটি সরকারী প্রাঃ বিদ্যালয়, দুইটি কিন্ডার গার্টেন ও তিনটি মসজিদ রয়েছে। যেখানে অনেক ছাত্র-ছাত্রী লেখাপড়া করে। কিন্তু তাদের জন্য গ্রামে কোনো খেলার মাঠ নেই ও বিনোদন কেন্দ্র নেই। সরকারী খাস জমিতে খেলার মাঠ ও শিশু পার্কের ব্যবস্থা করে দিলে আমরা আপনার নিকট চির কৃতঞ্জ থাকব। তাই আমরা অচিরেই ভূমিদস্যু আল মোস্তফার অত্যাচার, নির্যাতন ও ভূমিদস্যুতার বিরুদ্ধে আমাদের জমি রক্ষা করতে সকল গ্রামবাসী মিলে প্রশাসনের উর্দ্ধতন মহলের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
এবিষয়ে আষাঢ়িয়ারচর গ্রামের কৃষক হযরত আলী, হাসান আলী প্রধান, আব্দুল হাই, মতিউর রহমান জানান, আমাদের জমিতে আলু চাষ করেছিলাম। তারা জোর করে আমাদের ফসলের উপর বালু ভরাট করে ফেলেছে। আমরা বাঁধা দিলে তারা মারধরসহ মামলা হামলার হুমকি দেয়। এছাড়া স্থানীয় কৃষক নূর হোসেন, রুহুল আমিন, আলাউদ্দিন মুন্সি ও শরীফ হোসেন জানান, আমাদের জমি না কিনেই কোম্পানীর হয়ে স্থানীয় নেতারা জোর করে ভরাট করে ফেলছে।
আষাঢ়িয়ার চর গ্রামের বাসিন্দা কামিনা বেগম, নূরুন্নেছা ও কামরুন্নেছা জানান, আমাদের শেষ সম্ভল ভিটেমাটি জোর করে আল মোস্তফা কোম্পানী ও তার লোকজন বালু ফেলে ভরাট করে ফেলছে। আমরা বালু ভরাটে বাঁধা দিতে গেলে কোম্পানীর পক্ষ হয়ে সন্ত্রাসী লাঠিয়াল বাহিনী মারধর করতে আসে।
এ ব্যাপারে আল মোস্তফা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল বলেন, আমি বালু ভরাটের কাজটি স্থানীয় নেতাদের দিয়েছি। তারা আমার কাছ থেকে বালু ভরাটের কন্ট্রাক নিয়ে বালু ভরাট করে দিবে। যদি কারো জমি না কিনে ভরাট করা হয়ে থাকে, তাহলে আমার কাছে আসলে তাদের জমি ন্যায্যমুল্য দিয়ে কিনে নেয়া হবে।
বালু ভরাটের কাজে জড়িত স্থানীয় ঠিকাদার মোক্তার হোসেন বলেন, কারো জমি জোর করে ভরাট করা হচ্ছে না। তারপরও কৃষকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বর্তমানে আমি ভরাট কাজ বন্ধ রেখেছি। আল মোস্তফা গ্রুপের চেয়ারম্যান তার ক্রয়কৃত জমি কাগজে কলমে আমাকে বুঝিয়ে দিলে ভরাট কাজ পূনরায় শুরু করবো। জোর করে কারো জমি ভরাট করবো না।
এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ নাজমুল হুসেইন জানান, পিরোজপুর ইউনিয়নের আষাঢ়িয়ারচর গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে একটি স্মারকলিপি পেয়েছি। আল মোস্তফা গ্রুপ যদি জোরপূর্বক কৃষি জমি ভরাট, সরকারী খাল ও খাস জমি দখল করে থাকে, তাহলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এই পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

© All rights reserved © 2017 সোনারগাঁও খবর
Design BY Codeforhost.com
themesbsongar1727434411