January 25, 2020, 9:37 am

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের সাইটে স্বাগতম...
সংবাদ শিরোনাম :
গজারিয়ায় সাংবাদিকদের সাথে ওসির মত বিনিময়. চৌধুরীগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ে চুরি, নগদ টাকা ও কাগজপত্র লুট সোনারগাঁওয়ে অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে ১৩ শ্রমিক আটক, প্রত্যেককে ৭ দিনের কারাদন্ড ‘বেদের মেয়ে জোসনা’র প্রযোজক আব্বাস আর নেই সংগীত শিল্পীএন্ড্র কিশোরের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী মেঘনা নদীর আনন্দ বাজার এলাকায় চলছে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন প্রশাসন নিরব গাছ কেটে ভুমি হিনদের বাড়িঘর দখলে চেষ্ঠার অভিযোগ আল মোস্তফার বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সালাম, সম্পাদক স্মিথ মহাসড়কের কাঁচপুর থেকে মেঘনা ঘাট পর্যন্ত বাই লেন নির্মাণের করা হলে কমবে জন দূর্ভোগ সোনারগাঁও থেকে কিছু আলো নিয়ে ময়মনসিংহে সোনা ছড়ানো হবে ————- মন্ত্রী কে এম খালিদ

মেঘনা নদীতে চলছে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

সোনারগাঁও খবর ডটকম : সোনারগাঁও উপজেলার মেঘনা নদীর আনন্দবাজার এলাকায় ইজার ছাড়াই কয়েকটি শক্তিসালি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে চলছে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন। অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে মেঘনা আশেপাশের অনেক গ্রাম হুমকির মুখে রয়েছে। এরই মধ্যে কয়েকাট গ্রাম নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। ইতি মধ্যে মালিগাঁও, হাড়িয়া, গোবিন্দি, হাড়িয়া, বৈদ্যেপাড়া, সোনামুইসহ কয়েকটি গ্রাম নদীতে বিলীন হওয়ার হুমকিতে রয়েছে।

যাদের বিরুদ্ধে বালু উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে তারা সবাই স্থানীয় প্রভাবশালী। তাদের মধ্যে রয়েছেন বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের টেকপাড়া আমিরাবাদ গ্রামের মৃত নুরু মিয়ার ছেলে আমির হোসেন,আল আমিন ও রুহুল আমিন। তাদের নেতৃত্বে ১০/১৫ জনের একটি প্রভাবশালীরা- সিন্ডিকেট প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধ ভারে বালু উত্তোলন করে আসছে।

উপজেলার মেঘনা নদীর আমির হোসেন, আল আমিন ও রুহুল আমিনে নেতৃত্বে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন বলে অভিযোগ গ্রামবাসীর। এ ছাড়া বৈদ্যেরবাজার এলাকায় আমির হোসেন একটি সিন্ডিকেট তৈরি করে দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন করছেন। স্থানীয়দের অভিযোগ, ওই সিন্ডিকেট দীর্ঘদিন ধরে প্রশাসনের সঙ্গে আঁতাত করে মেঘনা নদী থেকে প্রতিদিন অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে। এজন্য তারা মেঘনা নদীর আনন্দবাজার এলাকায় বসিয়েছে ২০ থেকে ৩০টি ড্রেজার।

আজ সোমবার মেঘনা নদীর আনন্দবাজার এলাকার ১৫-১৬টি ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করতে দেখা গেছে। ওই এলাকায় একটি ট্রলারে লাঠিসোটা নিয়ে পাহারা দিচ্ছে বালু উত্তোলনকারীদের লোকজন।

সোনারগাঁওয়ের মেঘনা নদী থেকে বালু উত্তোলন ও বালু মহাল বন্ধের জন্য জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে ডিও লেটার দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা। গত ২৬ নভেম্বর জেলা প্রশাসক ও ২৮ নভেম্বর পুলিশ সুপার বরাবর এ ডিও লেটার প্রদান করেন তিনি।
ডিও লেটারে উল্লেখ করা হয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে মেঘনা নদীর থেকে আল-আমিন ও এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও নৌ-চাঁদাবাজরা নুনেরটেক এলাকার মেঘনা নদীর তীর ঘেষে ৮/১০টি শক্তিশালী ড্রেজার দিয়ে রাতদিন অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সুত্র জানান, উপজেলার আনন্দবাজারে অবৈধ বালুমহালের টাকা ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের টেকপাড়া আমিরাবাদ এলাকার মৃত. আরজ আলীর ছেলে জাকির হোসেন (৩২) নামে এক যুবক খুন হয়। এর পর কিছু দিন বালু উত্তোলন বন্ধ থাকলেও গত কয়ে দিন ধরে প্রকাশ্বে আন্দবাজার এলাকায় আমির হোসেন, আল আমিন ও রুহুল আমিনে নেতৃতে চলছে অবৈধ ভারে বালু উত্তোলন। জাকির হোসেন হত্যার আসামীদের পরিবার বাড়িতে থাকতে হলে দিতে হচ্ছে টাকা। টাকা না দিলে ছাড়তে হয় বাড়ি ঘর।

তবে এসব অস্বীকার করে আমির হোসেন বলেন, বালু উত্তোলনের সঙ্গে জড়িত না তাছাড়া আমি কারো কাছ থেকে কোপ প্রকার টাকা নিচ্ছিনা। প্রতিপক্ষ তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

সোনারগাঁর ইউএনও রকিবুর রহমান খানের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এই পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

© All rights reserved © 2017 সোনারগাঁও খবর
Design BY Codeforhost.com
themesbsongar1727434411