শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

Notice :
Welcome To Our Website... Sonargaonkhabar.com

ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দিল ছাত্রলীগ

দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) অনার্স প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রমে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ভর্তির অপেক্ষমাণ তালিকার মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তিচ্ছুদের ভর্তি করা হয়নি বলে এ অভিযোগ। এ ঘটনায় ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ।

ভর্তি কার্যক্রমে মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তি না করার ব্যাপারে অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা। এ ব্যাপারে প্রশাসন জানিয়েছে, বিষয়ভিত্তিক পছন্দক্রম ফরম পূরণ না করায় ভর্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর দাখিল করা জি ইউনিটের অপেক্ষমাণ মেধাতালিকায় থাকা শারমিন আকতার মিতুর অভিযোগ থেকে জানা যায়, জি ইউনিটের (৩য় শিফট) ভর্তি পরীক্ষায় রোল ৭২০১০৭ অপেক্ষমাণ তালিকায় ১১তম হন তিনি। সে অনুযায়ী সোমবার রিপোর্ট করেন। অথচ মঙ্গলবার দুপুরে এসে দেখতে পান তাকে বাদ দিয়ে অপেক্ষমাণ তালিকার পরের জন অর্থাৎ ১২তম হওয়া পরীক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। এটিকে অনভিপ্রেত ও অনিয়ম করা হয়েছে জানিয়ে তিনি মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তির সুযোগ দেয়ার অনুরোধ জানান।

একই অভিযোগ করেন এফ ইউনিটের (শিফট-১) অপেক্ষমাণ তালিকায় ১০০তম থাকা শিক্ষার্থী রিদওয়ানুল হক (ভর্তি পরীক্ষার রোল নং-৬০১৩৯৮)। শুধু এ ২ শিক্ষনার্থীই নন, এ ধরনের অনেক শিক্ষার্থীই অপেক্ষমাণ মেধা তালিকায় থেকেও ভর্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষার্থী রিদওয়ানুল হক জানান, অপেক্ষমাণ মেধাক্রম তালিকায় থাকা এবং রিপোর্ট করার পরও তাকে বাদ দিয়ে অপেক্ষমাণ মেধাক্রম তালিকায় ১০৩তম থাকা শিক্ষার্থীকে নেয়া হয়েছে। এতে তার প্রতি অন্যায় ও অনিয়ম করা হয়েছে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে তাকে মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তির সুযোগ চান তিনি।

এদিকে অপেক্ষমাণ মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তি না করার প্রতিবাদে অডিটোরিয়াম-১-এ চলা ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। পরে তারা বিষয়টি নিয়ে রেজিস্ট্রার ও ভিসির কার্যালয়ে যায়।

ছাত্রলীগ নেতা আলমগীর হোসেন আকাশ জানান, যেহেতু ভর্তি কার্যক্রমে একটি অভিযোগ উঠেছে, তাই ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সুষ্ঠুভাবে ভর্তি কার্যক্রম হোক, এটি ছাত্রলীগের কাম্য। তাই এর সমাধান না হওয়া পর্যন্ত ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ রাখার দাবি জানান তিনি।

ভর্তি পরীক্ষা কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মোস্তাফিজার রহমান জানান, ৮ শিক্ষার্থী এমন অভিযোগ করেছে। কিন্তু তারা বিষয়ভিত্তিক পছন্দক্রম ফরম পূরণ করেনি। তাই তারা ভর্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে।বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. সফিউল আলম অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, যারা পছন্দের বিষয় পূরণ করেনি, তারা বাদ পড়েছে। বিগত দিনগুলোয় যেভাবে ভর্তি কার্যক্রম হয়েছে, এবারও তাই হয়েছে। কিন্তু এ অভিযোগে একটি গোষ্ঠী ভর্তির কার্যক্রম আপাতত বন্ধ করে দিয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

সর্বসত্ব সংরক্ষিত © সোনারগাঁও খবর
Design BY Codeforhost.com
themesbsongar1727434411